দিনের শুরুটা এক কাপ চায়ে চুমুক যেন অমৃতের স্বাদ দেয়। তবে চা কেবল সকালের ঘুম কাটানো ও ক্লান্তি দূর করা মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়, কমিয়ে ফেলে ক্যান্সারের মতো ঝুঁকিও।

সম্প্রতি গবেষণায় জানা গেছে, মরনব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ৮০ ভাগ ঝুঁকি কমিয়ে ফেলে চা পাতা। চায়ের মধ্যে থাকা ক্ষুদ্র কণা ফুসফুসের ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে থাকে।যুক্তরাজ্যের একদল গবেষক জানান,চা পাতায় অ্যামিনো অ্যাসিড, ভিটামিন, অ্যান্টি-অক্সিডেন্টসহ একাধিক উপাদান উপস্থিত, যা ঠাণ্ডা লাগা, কাশি ও জ্বরের মতো রোগকে প্রতিরোধ করে।

আর চায়ের এই উপাদানগুলোর ব্যবহার করে ক্যান্সারের প্রতিষেধক বানানো সম্ভব বলে দাবি করেছেন গবেষকরা। তারা জানান, চা পাতা থেকে উৎপন্ন কণাগুলো সক্রিয়ভাবে ক্যান্সারের কোষগুলোকে বেড়ে উঠতে বাঁধা দেয়। এ প্রক্রিয়ায়, চা পাতার নির্যাসের সঙ্গে ক্যাডমিয়াম সালফেটসহ সোডিয়াম সালফাইড যোগ করে একটি উপাদান তৈরি হবে। যেখান থেকে তৈরি করা হবে এক বিশেষ কণা। সে কণাগুলো পরবর্তীকালে ফুসফুসকে ক্যান্সার কোষগুলো মুক্ত করতে সাহায্য করবে।

চা পাতা দিয়ে তৈরি এই প্রক্রিয়াটি রাসায়নিক পদ্ধতির থেকে অনেক বেশি সহজ। তাই গবেষকরা এই সহজ পদ্ধতির উপরই বেশি গুরুত্ব আরোপ করছেন।

Leave a comment